Print Paper - news69bd.com - Publish Date : 5 June 2019

এবারের ঈদযাত্রা ইতিহাসের সবচেয়ে স্বস্তিদায়ক: কাদের

এবারের ঈদযাত্রা ইতিহাসের সবচেয়ে স্বস্তিদায়ক: কাদের

গাজীপুর, ৫ জুন : এবারের সড়কপথে ঈদযাত্রা ইতিহাসের সবচেয়ে স্বস্তিদায়ক যাত্রা বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ঘণ্টার পর ঘণ্টা মানুষের যে দুর্ভোগ ছিল, তার অবসান হয়েছে। বর্তমানে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে সাড়ে তিন থেকে চার ঘণ্টায় যাওয়া যায়। গাজীপুর থেকে ময়মনসিংহ ও উত্তর জনপদের জেলাগুলোর দিকে যে যাত্রা, এবারের যাত্রা ইতিহাসের সবচেয়ে স্বস্তিদায়ক যাত্রা, যা আমরা জনগণকে উপহার দিতে পেরেছি।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক পরিদর্শনে গিয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বাইমাইল এলাকায় সাউথ এশিয়া সাবরিজিওনাল ইকোনমিক কো-অপারেশন (সাসেক) প্রকল্পের সাইড অফিসে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দু’টি উড়াল সেতু, কয়েকটি ওভারপাস, কাঁচপুর, মেঘনা ও গোমতিসহ অনেকগুলো সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে এবারের ঈদযাত্রাকে নির্বিঘ্ন ও স্বস্তিদায়ক করেছেন। এটা দেশবাসী উপলদ্ধি করছে। সড়ক নিয়ে কারও কোনো অভিযোগ নেই। এবার সড়কের যাত্রা স্বস্তিদায়ক।

তিনি বলেন, টাঙ্গাইলে দুর্ঘটনা ও রংসাইডে গাড়ি চালানোর জন্য কিছু সমস্যার সৃষ্টি হয়েছিল। এই মুহূর্তে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। আশা করছি, ঘরমুখো মানুষ পরিবারের সঙ্গে ঈদ করার জন্য স্বাচ্ছন্দ্যে বাড়ি ফিরতে পারবে। এ বিষয়টি বিশেষভাবে নজর দিয়েছি।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে এখন সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থায় পরিবর্তন দৃশ্যমান হচ্ছে। পরিবহন ও সড়কে যে বিশৃঙ্খলা সেগুলো দূর করতে হবে। সড়কগুলো অবৈধ দখল থেকে মুক্ত করতে হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণভাবে আদালতের এখতিয়ার। বিএনপির আইনজীবীরা প্রমাণ করতে পারেননি যে, তিনি (খালেদা জিয়া) নির্দোষ। খালেদা জিয়া গত ১৫ মাস ধরে কারাগারে আছেন। বিএনপি এ পর্যন্ত রাজপথে কোনো আন্দোলন করতে পারেনি। জনগণ সাড়া দেয়নি। সেটা তো আমাদের দোষ না। এটা তাদের ব্যর্থতা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বাস র্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক সানাউল হক, সাসেক প্রকল্প পরিচালক ইছহাক আলী, সড়ক ও জনপদের (সওজ) ঢাকা জোনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান ও গাজীপুরের পুলিশ কমিশনার আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।