Print Paper - news69bd.com - Publish Date : 15 April 2019

মোদি জয়ী হলে ক্ষমতাকে হিটলারের মতো করবেন: কেজরিওয়াল

মোদি জয়ী হলে ক্ষমতাকে হিটলারের মতো করবেন: কেজরিওয়াল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ১৫ এপ্রিল : ভারতের লোকসভা শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার। প্রথম ধাপের ভোট শেষ হয়েছে বৃহস্পতিবার। এই ভোট নিয়ে দলগুলো বিভিন্ন ধরনের কথা বলেছেন। আর এই ভোটকে কেন্দ্র করে দলগুলোর মধ্যে একে অপরকে আক্রমণ করে বক্তব্য দিয়েছেন। কিছু দিন আগে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেছেন, নরেন্দ্র মোদি একটা চোর চকিদার। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীও কটাক্ষ করেছেন। কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার এক পথসভায় রাহুলকে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে। এ ধরনের অভিযোগ করেছে দলটির পক্ষ থেকে। আর এর জন্য দায়ি করা হয়েছে মোদি সরকারকে। আর আজ নয়া দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আম আদমি পার্টির প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল দাবি করেছেন, নরেন্দ্র মোদি ফের প্রধানমন্ত্রী হলে তিনি হিটলারের মতো আজীবন ক্ষমতায় থাকবে।

বিজেপি ফের ক্ষমতায় এলে দেশের পরবর্তী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হতে পারেন অমিত শাহ, দাবি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আম আদমি পার্টি (আপ) প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়ালের। লোকসভা নির্বাচনে গোয়ায় প্রার্থী দিয়েছে আপ। উপনির্বাচনেও প্রার্থী দাঁড় করানো হচ্ছে তিনটি আসনে। সেই উপলক্ষ্যে সম্প্রতি গোয়ায় একটি জনসভায় বক্তৃতা করছিলেন তিনি। সেখানেই এমন মন্তব্য করেন। এমনকি হিটলারের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদির তুলনা টানেন তিনি। কেজরীর কথায়, “হিটলারের মতোই আজীবন ক্ষমতায় থাকতে চান নরেন্দ্র মোদি।”

ওই জনসভায় অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, “এই নির্বাচন গণতন্ত্র রক্ষার লড়াই। ফের যদি মোদি প্রধানমন্ত্রী হন, অমিত শাহ হবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। গতবার লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি অমিত শাহ। এ বার গাঁধীনগর থেকে লড়ছেন। শাহ দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হলে পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে ভেবে দেখুন।”

জার্মানির অ্যাডল্ফ হিটলারের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির তুলনা টানেন কেজরিওয়াল। বলেন, “২০১৯-এর নির্বাচন গণতন্ত্র রক্ষার লড়াই। ১৯৩২ সালে হিটলার জার্মানির চ্যান্সেলর নির্বাচিত হন হিটলার। তার তিনমাসের মধ্যে দেশের সংবিধান বদলে ফেলেন তিনি। বন্ধ করে দেন নির্বাচন। তাঁর আদর্শ মেনেই এগোচ্ছে বিজেপি, যেখানে আজীবন প্রধানমন্ত্রী থাকতে পারবেন নরেন্দ্র মোদি।”

বালাকোট নিয়ে এর আগে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যা ছড়ানোর অভিযোগ তুলেছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। কিন্তু বালাকোটের পরও মোদিকে ফের ভারতের প্রধানমন্ত্রী দেখতে চান বলে মন্তব্য করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কিন্তু এর পিছনে মোদি-ইমরানের আঁতাঁত রয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন কেজরিওয়াল। তার দাবি, “ইমরান খান বলছেন ফের মোদিরই প্রধানমন্ত্রী হওয়া উচিৎ। ওঁদের মধ্যে চলছেটা কী? হঠাৎ এত উদ্বিগ্ন হয়ে পড়লেন কেন ইমরান? মোদিকেই বা প্রধানমন্ত্রী চাইছেন কেন? আসলে নরেন্দ্র মোদির মতো আর ভালো প্রধানমন্ত্রী পাবে না পাকিস্তান। কারণ যেভাবে ভারতকে বিষিয়ে দিচ্ছেন মোদি, তাতে ওদেরই লাভ। গত ৭০ বছরে ওরা যা করতে পারেনি, মোদি-শাহ তা পাঁচ বছরেই করে দেখিয়েছেন। ভারতীয় সমাজে বিভাজন ঘটিয়ে ফেলেছেন ওঁরা।