Print Paper - news69bd.com - Publish Date : 10 July 2018

চাকরির খোঁজে এসে অফিসে ধর্ষিত তরুণী

চাকরির খোঁজে এসে অফিসে ধর্ষিত তরুণী

নিউজ৬৯বিডি ডেস্ক, ১০ জুলাই : চব্বিশ বছরের এক তরুণী চাকরির খোঁজে গিয়েছিলেন কলকাতার একটি আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অফিসে। আর সেখানেই তাকে ধর্ষণ করে ওই সংস্থারই এক কর্মী।

রবিবার সন্ধ্যায় বউবাজার মোড়ের কাছে নির্মল চন্দ্র স্ট্রিটের ওই অফিসে এ ঘটনা ঘটে। খবর আনন্দবাজার।

তরুণীর অভিযোগ, পরিচিত এক নারীর সঙ্গে তিনি ওই অফিসে গিয়েছিলেন। ওই নারীই ধর্ষণকাণ্ডে অভিযুক্তকে সাহায্য করেছেন।

থানায় অভিযোগ দায়েরের পর পুলিশ অভিযুক্ত ওই যুবক ও নারীকে গ্রেফতার করেছে।

বউবাজার থানায় তরুণী জানিয়েছেন, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার ওই কর্মী শেখ রাজীব হোসেনের বাড়ি কড়েয়াতে। ওই নারী তাকে ওই অফিসে নিয়ে গিয়েছিলেন। সেই বৈশাখী করণ বিশ্বাসের মাধ্যমেই ওই যুবকের সঙ্গে আলাপ তরুণীর।

ওই সংস্থাটি মূলত পথশিশুদের একটি স্কুল চালায়। সেই স্কুলে পথশিশুদের পড়ানোর জন্য শিক্ষিকা খুঁজছিল সংস্থাটি। সেই সূত্র ধরেই সন্ধ্যায় তরুণী বৈশাখীর সঙ্গে যান নির্মল চন্দ্র স্ট্রিটের অফিসে।

ভবনের চারতলায় স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অফিস। ওই আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাটির শাখা রয়েছে ইথিওপিয়া ও ব্রাজিলেও।

গত বছরেই ভারতে কাজ শুরু করে সংস্থাটি। রোববার স্কুল ছুটি ছিল। অন্য কর্মীরাও ছিলেন না। সংস্থায় মোট ছয় কর্মী রয়েছেন। তাদের মধ্যে তিনজন পুরুষ, তিনজন নারী।

প্রজেক্ট ম্যানেজার হিসেবে জরুরি কাজ থাকায় অফিসে ছিলেন অভিযুক্ত রাজীব। বহুতলের বাকি তলায় বিভিন্ন বাণিজ্যিক সংস্থার অফিস ও শোরুম।

তরুণীর অভিযোগ, তাকে পৌঁছে দিয়ে বিশেষ কাজের কথা বলে অভিযুক্তের সঙ্গে তাকে রেখে চলে যান বৈশাখী। আর এ সুযোগেই তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন অভিযুক্ত।

ওই তরুণীর দাবি, তিনি বাধা দেয়ার চেষ্টা করেছিলেন। চিৎকারও করেছিলেন সাহায্য চেয়ে। কিন্তু ছুটির দিন থাকায় গোটা বাড়ি ছিল কার্যত জনশূন্য। তাই তার চিৎকারের পরও কেউ সাহায্যে এগিয়ে আসেননি।
 
এর পর ঘটনাস্থল থেকে বাসায় ফিরে বিষয়টি নিজের পরিবারকে জানান। বিষয়টি বৈশাখীকেও জানানো হয়।

কিন্তু সেই নারী তাকে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করতে না করে।

তবে শেষ পর্যন্ত উত্তর কলকাতার ওই তরুণী বউবাজার থানাতে অভিযোগ জানান।

পরে রাত ১১টা নাগাদ ঘটনাস্থলে পৌঁছান তদন্তকারীরা। রাতেই গ্রেফতার করা হয় মূল অভিযুক্ত রাজীবকে।

তরুণীর অভিযোগ, বৈশাখী গোটা পরিকল্পনা জানত। আর জেনেশুনেই তাকে অভিযুক্তের কাছে একা ছেড়ে গিয়েছিল। এই অভিযোগের ভিত্তিতে এ ধর্ষণ মামলায় ওই নারীও অভিযুক্ত। বৈশাখীকে সোমবার রাতে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মঙ্গলবার বৈশাখী ও রাজীব দুজনকেই আদালতে তোলা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।