adimage

১৪ ডিসেম্বর ২০১৮
সকাল ০৯:৪১, শুক্রবার

রোনালদোর বিরুদ্ধে আরো ধর্ষণের অভিযোগ!

আপডেট  07:06 AM, অক্টোবর ০৯ ২০১৮   Posted in : স্পোর্টস    

রোনালদোরবিরুদ্ধেআরোধর্ষণেরঅভিযোগ!

স্পোর্টস ডেস্ক, ৯ অক্টোবর : চলতি বছরটা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর জন্য অপয়া-ই বলা চলে। বিশ্বকাপে দলের বাজে পারফরম্যান্সের পর ছেড়ে দিলেন প্রিয় ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ। হাতছাড়া হলো ফিফার বর্ষসেরার ফুটবলারের পুরস্কার। সর্বশেষ ধর্ষণের অভিযোগে মামলায় কোনঠাসা সিআর সেভেন খ্যাত এ তারকা।

দিনকে দিন ব্যাপারটি যখন আরও গভীর হচ্ছে, তখন উঠে এলো নতুন আরেক তথ্য। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে ইতিমধ্যেই হইচই ফেলে দেয়া মার্কিন নারী ক্যাথরিন মায়োরগার আইনজীবী লেসলি স্তোভাল দাবি করেছেন, আরও তিন নারী নাকি রোনালদোর বিরুদ্ধে প্রায় একই রকম অভিযোগ জানিয়ে তাকে ফোন করেছেন।

সেই আইনজীবী আপাতত নতুন সব অভিযোগের সত্যতা যাচাই করার চেষ্টা করছেন।

নতুন তিন অভিযোগকারীর একজন দাবি করেছেন, তাকেও রোনালদো এক পার্টির পর মায়োরগার মতোই হোটেলে ধর্ষণ করেন। আরেকজনের দাবি, রোনালদোর অস্বাভাবিক ব্যবহারে তিনিও আঘাত পান। তৃতীয় জন দাবি করেছেন, মায়োরোগার ক্ষেত্রে যেমন হয়েছিল, তার সঙ্গেও বর্তমান জুভেন্টাস তারকা প্রচুর অর্থের বিনিময়ে সত্য গোপন করার প্রতিশ্রুতি আদায় করেন। সেটাও ঘটে নাকি ২০০৯ সালে।

মায়োরগা আইনজীবী স্তোভাল বলেন, ‘আপাতত এই ধরনের তথ্যের সত্যতা যাচাই করার চেষ্টা করছি। সেটা করতে পারলে আমার মক্কেলের দাবি আরও জোরদার হবে।’

এর আগে পর্তুগালের তারকা ফরোয়ার্ড রোনালদোর বিরুদ্ধে ২০০৯ সালের এক ঘটনা নিয়ে মার্কিন ঐ নারী গুরুত্বর এক অভিযোগ তুলে শেষ পর্যন্ত মামলা করেছেন।

জার্মান ম্যাগাজিন ‘দের স্পিগেল’ সম্প্রতি এক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সেখানেই ক্যাথরিন মায়োরগা রোনালদোর বিপক্ষে ধর্ষণের অভিযোগ আনেন। ম্যাগাজিনে মায়োরগা অভিযোগে জানান, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসের পামস প্লেস হোটেলে তাকে ধর্ষণ করেন রোনালদো।

কিন্তু এত বছর পর কেন এমন অভিযোগ, এমন প্রশ্নের উত্তরে মায়োরগা জানান, জুভেন্টাস তারকা তাকে তিন লক্ষ পচাঁত্তর হাজার মার্কিন ডলার দিয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য মুখ বন্ধ রাখতে বলেন। মায়োরগার দাবি, আদালতে না যাওয়ার জন্য রোনালদো তাকে এই অর্থ দেন। সেই সময় ওই পরিমাণ অর্থ পেয়ে ও কিছুটা ভয়েই মুখ খোলেননি ওই মার্কিন নারী।

অবশ্য এবারই প্রথম নয়। বছর দেড়েক আগে এই ম্যাগাজিন আরও একবার মায়োরগার পক্ষ থেকে রোনালদোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তোলে। সেবারও সে অভিযোগ ধোপে টেকেনি। আবারও সেই একই অভিযোগ তোলায় রোনালদোর আইনজীবী ম্যাগাজিনের বিপক্ষে আদালতে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন।

রোনালদোর পক্ষ থেকে ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করে তার আইনজীবি জানান, ২০০৯ সালে ক্যাথরিন তার সঙ্গে স্বেচ্ছায় যৌনতায় লিপ্ত হয়েছিলেন। ফলে তাতে ধর্ষণের অভিযোগ ভিত্তিহীন।

এত সব ঘটনার পরেও রোনালদোর ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাস কিন্তু এই বিখ্যাত ফুটবলারের পাশেই থাকছে।

এদিকে, উয়েফা এবং ফিফার বর্ষসেরার পুরস্কার হাতছাড়া হওয়ার পরে ব্যালন ডি’অরের ৩০ জনের মনোনয়নের তালিকাতে আছেন রোনালদো। পাঁচ বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তিনি।

রোনালদো ছাড়া লুকা মদ্রিচ, রিয়াল মাদ্রিদের গ্যারেথ বেল, ম্যানচেস্টার সিটির কেভিন দে ব্রুইনও আছেন তালিকায়।

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul