adimage

২৩ অগাস্ট ২০১৯
সকাল ০৪:৫৬, শুক্রবার

জিএম কাদের জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান

আপডেট  02:51 AM, Jul ১৯ ২০১৯   Posted in : রাজনীতি    

জিএমকাদেরজাতীয়পার্টিরচেয়ারম্যান

ঢাকা, ১৯ জুলাই : জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হলেন প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছোট ভাই জিএম কাদের।

বৃহস্পতিবার পার্টির বনানী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে নতুন চেয়াম্যানের নাম ঘোষণা করেন দলের মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা।

চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর জিএম কাদের বলেন, দলীয় ফোরামে বসে জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচন করা হবে। ২০ জুলাই সকাল ১০টায় জাতীয় পার্টির নির্বাহী কমিটির জরুরি সভা আহ্বান করা হয়েছে। পার্টির বনানী কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে।

সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব বলেন, ‘হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের আগের ঘোষণা অনুযায়ী জিএম কাদের আজ থেকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান। আপনারা জানেন এরশাদ জীবিত অবস্থায় ২০-এর ১/ক ধারা অনুযায়ী ওনার অবর্তমানে জিএম কাদেরকে পার্টির চেয়ারম্যান ঘোষণা করে গেছেন।’ ১৪ জুলাই সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পদ শূন্য হয়। এর চার দিন পর নতুন চেয়ারম্যানের নাম ঘোষণা করা হয়।

জিএম কাদের একাদশ জাতীয় সংসদের সদস্য। তিনি সপ্তম, অষ্টম, নবম সংসদেরও সদস্য ছিলেন। লালমনিরহাট-৩ এবং রংপুর-৩ আসন থেকে জাতীয় পার্টির মনোনয়নে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। জিএম কাদের বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ছিলেন।

দলীয় ফোরাম বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচন করবে : চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেয়ার পর জিএম কাদের বলেছেন, দলীয় ফোরামে বসে জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচন করা হবে। তিনি বলেন, ‘বিষয়টি অনেকটা স্পিকারের ওপর নির্ভরশীল, তবে জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে সুপারিশ দেয়া হবে।’ বৃহস্পতিবার পার্টির বনানী কার্যালয়ে বিরোধীদলীয় নেতা কে হবেন- গণমাধ্যমকর্মীদের এমন প্রশ্নের জবাবে জিএম কাদের এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে প্রাকৃতিক দুর্যোগের সুদক্ষ ব্যবস্থাপক বলা হয়। উনি বেঁচে থাকলে আজকে বন্যাকবলিতদের পাশে ছুটে যেতেন। আমরা জাতীয় পার্টিসহ সর্বস্তরের জনগণকে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ করছি। পার্টির পক্ষ থেকে টিম গঠন করে অচিরেই বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানো হবে।

এ সময় ডেঙ্গু প্রতিরোধে সরকারকে আরও কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান জাতীয় পার্টির নতুন চেয়ারম্যান। এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর সদর আসনে উপনির্বাচনে প্রার্থী দেয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সংসদীয় বোর্ড প্রার্থী চূড়ান্ত করবে।

জিএম কাদের বলেন, ‘মিডিয়ার ভূমিকার কারণে কোনো গুজব মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারেনি। দেশের মানুষ সঠিক তথ্য জেনেছেন। একজন রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে উনি আপনাদের কাছে যা পেলেন তা দেশের ইতিহাসে এক বিরল ঘটনা হয়ে থাকবে। টানা ষোলো দিন, কোনো বরেণ্য ব্যক্তির স্বাস্থ্যগত অবস্থা সম্পর্কে এভাবে প্রচার হয়েছে বলে আমার মনে পড়ে না।’

জাতীয় পার্টিতে কোনো দ্বিধা-দ্বন্দ্ব নেই- দাবি কাদেরের : জাতীয় পার্টিতে কোনো দ্বিধা-দ্বন্দ্ব নেই- সংবাদ সম্মেলনে এমন দাবি করেন জিএম কাদের। তিনি বলেন, ‘মিডিয়াকর্মীরা যে কোনো তথ্যের জন্য আমার সঙ্গে কিংবা আমার প্রেস শাখার সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। প্রকাশ উপযোগী কোনো তথ্য আপনাদের কাছে কখনই গোপন রাখা হবে না।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের বিপদের দিনে আপনারা পাশে ছিলেন। বিপদে যে পাশে থাকে সেই তো প্রকৃত বন্ধু। আমাদের দুঃখে-সুখে সব সময় এভাবেই পাশে থাকুন- আজ শোকাতুর হৃদয়ে আপনাদের কাছে এ আবেদন জানাতে চাই।’ তিনি বলেন, ‘রংপুরে ওনার (হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ) দাফন পর্যন্ত মিডিয়াকর্মীরা যে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন তা আমার কাছে বর্ণনাতীত। এর জন্য শুধু কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলে খুব কম হয়ে যাবে। আমরা আপনাদের এই অবদানের কথা কোনোদিন ভুলতে পারব না।’

তিনি আরও বলেন, একটি বিষয় আমি আপনাদের সুস্পষ্টভাবে বলতে চাই, জাতীয় পার্টির মধ্যে কোনো ধরনের বিভেদ, দ্বন্দ্ব^, মতানৈক্য নেই। আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি এবং থাকব। ওনার শোককে আমরা শক্তিতে রূপান্তরিত করে তার আদর্শ ও কর্মসূচি বাস্তবায়নে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাব।’

কাদের বলেন, এরশাদের দাফনের ব্যাপারে ঢাকার বনানী সেনা কবরস্থান ও রংপুরে তার নিজ বাসভবন পল্লী নিবাসের প্রস্তাব ছিল। শেষ পর্যন্ত রংপুরবাসীর ভালোবাসার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আমরা পারিবারিকভাবে রংপুরেই তাকে সমাহিত করেছি। সেখানে সম্পূর্ণ রাষ্ট্রীয় এবং সামরিক মর্যাদায় তাকে দাফন করা হয়েছে। আমরা অচিরেই একটি স্মরণসভার আয়োজন করব।

শনিবার জাতীয় পার্টির জরুরি সভা : ২০ জুলাই সকাল ১০টায় জাতীয় পার্টির নির্বাহী কমিটির জরুরি সভা আহ্বান করা হয়েছে। পার্টির বনানী কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় দেশের বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় পার্টির কর্মসূচি নির্ধারণ করা হবে বলে জানা গেছে।

দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা, ভাইস চেয়ারম্যান, যুগ্ম মহাসচিব, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য, নির্বাহী ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, প্রত্যেক অঙ্গসংগঠনের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, দুই মহানগরের থানা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে সভায় উপস্থিত থাকার জন্য বলা হয়েছে। সম্ভব হলে ঢাকার বাইরে থেকেও সংশ্লিষ্ট নেতাদেরও সভায় যোগদানের অনুরোধ জানিয়েছেন পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা।

এদিকে প্রত্যেক জেলা-উপজেলায় হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জন্য দোয়া ও স্মরণসভা আয়োজনের কথা বলা হয়েছে। আগামী ৪০ দিন পর্যন্ত দোয়া ও স্মরণসভা আয়োজনের অনুরোধ জানিয়েছেন মসিউর রহমান রাঙ্গা।

তৃতীয় দিনেও শোক বইতে স্বাক্ষর : সাবেক রাষ্ট্রপতি, বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে বৃহস্পতিবার তৃতীয় দিনের মতো বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও দূতাবাসের প্রতিনিধি শোক বইয়ে স্বাক্ষর করেছেন। বেলা ১১টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে এসে তারা শোক বইয়ে স্বাক্ষর করেন। মরক্কোর রাষ্ট্রদূত, শ্রীলংকার হাইকমিশনার, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত দূত, স্পেনের ডেপুটি হেড অব মিশন, ইরানের হেড অব মিশন, ইন্দোনেশিয়ার ডেপুটি হেড অব মিশন, ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালে প্রতিনিধি বনানী অফিসে এসে শোক বইয়ে স্বাক্ষর করেন।

তারা শোক বইয়ে সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বিভিন্ন উন্নয়ন ও কল্যাণমূলক কর্মকাণ্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন। এছাড়া নিজ নিজ দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক উন্নয়নে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের অবদানের কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন। আশা প্রকাশ করেন, পল্লীবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে জাতীয় পার্টি বাংলাদেশের রাজনীতিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের আত্মার শান্তি কামনা করেন। পাশাপাশি শোকার্ত পরিবার এবং জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের প্রতি সমবেদনা জানান।

এ সময় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং পার্টি চেয়ারম্যানের প্রেস অ্যান্ড পলিটিক্যাল সেক্রেটারি সুনীল শুভরায়, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা এবং সাবেক রাষ্ট্রদূত মেজর (অব.) আশরাফ-উদ-দৌলা, মাহমুদুর রহমান, যুগ্ম-মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু উপস্থিত ছিলেন।

পল্লী নিবাসে এরশাদের কুলখানি সম্পন্ন : বৃহস্পতিবার বাদ আসর এরশাদের পল্লী নিবাসে কুলখানি ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এদিন সকাল থেকেই কোরআন তিলাওয়াত ও রোজা রাখেন ভক্ত, সমর্থক ও নেতাকর্মীরা। এতে জাতীয় পার্টির মহানগর সাধারণ সম্পাদক ইয়াসির আলীসহ জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। -যুগান্তর

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul