adimage

১৯ এপ্রিল ২০১৯
সকাল ১২:২৭, শুক্রবার

যা আছে ইসির সাংবাদিক নীতিমালায়

আপডেট  06:37 AM, ডিসেম্বর ২৩ ২০১৮   Posted in : মিডিয়া    

যাআছেইসিরসাংবাদিকনীতিমালায়

ঢাকা, ২৩ ডিসেম্বর : একাদশ জাতীয় সংসদের ভোটকে সামনে রেখে সাংবাদিকদের জন্য নীতিমালা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ঘোষিত নীতিমালা অনুযায়ী, সংবাদ সংগ্রহের জন্য সাংবাদিকরা এবার মোটরসাইকেল ব্যবহার করতে পারছেন না। এছাড়া ইসির দেওয়া স্টিকারও মোটরসাইকেলে লাগানোর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

শুক্রবার ইসির যুগ্ম সচিব (জনসংযোগ) এসএম আসাদুজ্জামান স্বাক্ষরিত এই সংক্রান্ত নীতিমালা জারি করা হয়।

এবারই প্রথমবারের মতো সাংবাদিকদের মোটারসাইকেলের জন্য স্টিকার দিচ্ছে না নির্বাচন কমিশন। তবে অন্য যানবাহনে ব্যবহার করলে স্টিকার দেওয়া হবে। ভোটের সময় মোটরসাইকেল চালানোর উপরও ইতিমধ্যে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে রেখেছে ইসি।

ইসির ঘোষণা অনুযায়ী, আগামী ২৯ ডিসেম্বর মধ্যরাত থেকে ২ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ক্ষেত্র বিশেষ আরও অধিককাল মোটরসাইকেল বা অনুরূপ যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। এর ফলে ভোটের দিনের আগে-পরে মোট চার দিন সাংবাদিকরা মোটরসাইকেল ব্যবহার করতে পারছেন না।

নীতিমালায় সাংবাদিকদের বিষয়ে এক ডজনের বেশি দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। যেগুলো অমান্য করলে বা ব্যত্যয় ঘটলে সংশ্লিষ্ট সংবাদ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আইন, বিধি ও কোড অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে ইসি।

এ সংক্রান্ত নীতিমালা ইতিমধ্যে সকল রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে সুষ্ঠু, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। ভোট গ্রহণের দিনসহ বিভিন্ন সময়ে সাংবাদিকরা যাতে নির্বিঘ্নে সংবাদ সংগ্রহ করতে পারেন সেজন্য সহযোগিতা করা প্রয়োজন। তবে তা অবশ্যই বিধি নিষেধ মেনে করতে হবে।

আরও বলা হয়েছে, নির্বাচন কমিশনের অনুমোদিত ব্যক্তিই শুধু ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন। এজন্য নির্বাচন কমিশন থেকে সাংবাদিকদের বিশেষ কার্ড দেওয়া হবে। রিটার্নিং কর্মকর্তারা তাদের সংশ্লিষ্ট এলাকার কার্ড দিবেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাকে সংশ্লিষ্ট উপজেলার সাংবাদিকদের কার্ড দেওয়ার ক্ষমতা দিতে পারবেন।

এছাড়া যা আছে নীতিমালায়

নির্বাচন কমিশন থেকে দেওয়া বৈধ কার্ডধারী সাংবাদিক সরাসরি ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন। প্রিজাইডিং অফিসারকে জানিয়ে ভোটগ্রহণ কার্যক্রমের তথ্য সংগ্রহ, ছবি তোলা এবং ভিডিও ধারণ করতে পারবেন। তবে কোনোভাবেই গোপন কক্ষের ছবি তোলা বা ভিডিও ধারণ করা যাবে না। ভোট কক্ষের ভেতরের দৃশ্য সরাসরি সম্প্রচার করা যাবে না। ভোট গণনা কক্ষে উপস্থিত থাকা গেলেও সেটাও সরাসরি সম্প্রচার করা যাবে না।

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul