adimage

২৬ Jun ২০১৯
বিকাল ১১:৪৯, বুধবার

নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর পশ্চিমবঙ্গে হামলা-পাল্টা হামলা

আপডেট  02:47 AM, মে ২৬ ২০১৯   Posted in : আন্তর্জাতিক    

নির্বাচনেরফলঘোষণারপরপশ্চিমবঙ্গেহামলা-পাল্টাহামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ২৬ মে : ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর থেকে পশ্চিমবঙ্গে বেশকিছু জায়গায় তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেতাকর্মীরা। শনিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে একথা জানায় দেশটির বাংলা গণমাধ্যম আনন্দবাজার।

এতে বলা হয়, উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের কিছু এলাকা, বাঁকুড়া ও বর্ধমানের পাশাপাশি কোচবিহার কেন্দ্রের একাধিক জায়গায় তৃণমূল আর বিজেপি একে অন্যের বিরুদ্ধে হামলা-পাল্টা হামলার অভিযোগ করেছে।

কোচবিহারে তৃণমূল প্রার্থী পরেশ অধিকারীকে হারিয়ে জয়ী হয়েছেন বিজেপির নিশীথ প্রামাণিক। ফলাফল ঘোষণার পরপরই এখানে গোলমাল শুরু হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। তৃণমূলের অভিযোগ, বক্সিরহাট, মহিষকুচি, রামপুর, শালবাড়িতে তাদের কার্যালয়ে ভাঙচুর করা হয়। শুক্রবার সকালে সিতাইয়ে হামলা হয়। ৪০০ থেকে ৫০০ মোটরবাইক ভাঙচুর করেন বিজেপি কর্মীরা। সিতাই বাজারে তৃণমূলের একটি পার্টি অফিস ভাঙচুর করা হয়। একটিতে আগুন ধরানো হয়।

সিতাইয়ের তৃণমূল নেতানেত্রীর বাড়িতে হামলা হয়েছে। শীতলখুচিতে এক পঞ্চায়েত সদস্যের বাড়ি ভাঙচুর হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। মাথাভাঙার ফুলবাড়িতেও তৃণমূলের পার্টি অফিস দখলে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সিতাইয়ের তৃণমূল বিধায়ক জগদীশ বসুনিয়া বলেন, চারদিকে তাণ্ডব চলছে। নেতাকর্মীরা বাড়িতে থাকতে ভয় পাচ্ছে।

এদিকে, বৃহস্পতিবার রাতে তুফানগঞ্জ শহরের দেওচড়াইয়ে বিজেপি কর্মীদের ওপরে হামলার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

বিজেপির দাবি, দলটির চারজন কর্মী আহত হয়েছেন। বিজেপির জেলা সভানেত্রী মালতী রাভা বলেন, যা ঘটছে তার বেশির ভাগটাই জনরোষ। কিছু জায়গায় তৃণমূলের বিক্ষুব্ধ গোষ্ঠী হামলা করছে।

তৃণমূলের কোচবিহার জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, সিপিএম তথা বামেরা বিজেপিতে ভিড়ে তৃণমূলের ওপরে হামলা করছে।

দক্ষিণবঙ্গেও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বাঁকুড়া লোকসভার শালতোড়া বিধানসভা এলাকায় বৃহস্পতিবার রাতে একটি গোলমালের ঘটনাকে ঘিরে বিজেপি কর্মীরা থানার সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন।

অভিযোগ উঠেছে, এসময় তৃণমূলের ছোড়া গুলি এক বিজেপিকর্মীর কান ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। তৃণমূল ব্লক সভাপতির বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে।

পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রাম, কালনা, বর্ধমান শহরের কিছু অংশে তৃণমূলের দলীয় কার্যালয় দখল, তাতে আগুন ধরিয়ে দেয়া ও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে।

কালনায় বড়ধামাস পঞ্চায়েতে এক মহিলা সদস্যকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। বর্ধমান শহরে তাদের ১১টি পার্টি অফিস দখল করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছে তৃণমূল।

দুর্গাপুর-ফরিদপুর (লাউদোহা) থানা এলাকার পাটশ্যাওড়া গ্রামে তৃণমূল কর্মীর উপরে হামলা ও তার বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে।

এদিকে, জামুড়িয়ার শ্যামলা গ্রামে দুই বিজেপি কর্মীর ওপরে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul