adimage

২২ মার্চ ২০১৯
সকাল ০২:২৬, শুক্রবার

হামলাকারীর অস্ত্র কেড়ে নেন মসজিদের খাদেম

আপডেট  02:01 AM, মার্চ ১৬ ২০১৯   Posted in : আন্তর্জাতিক    

হামলাকারীরঅস্ত্রকেড়েনেনমসজিদেরখাদেম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ১৬ মার্চ : এক তরুণের সাহসিকতায় নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলা থেকে বেঁচে গেছে বহু মানুষের প্রাণ। সেই তরুণ কীভাবে হামলাকারীকে কাবু করে তার হাত থেকে অস্ত্র কেড়ে নেন, সেই কাহিনী শুনিয়েছেন লিনউড মসজিদ থেকে বেঁচে ফেরা একজন। খবর নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডের।

শুক্রবার দুপুরে জুমার নামাজের সময় ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদ এবং লিনউড মসজিদে হামলা চালায় দুই ব্যক্তি। তাদের হাতে ছিল অটোমেটিক রাইফেল। নির্বিচারে গুলিতে আল নূর মসজিদে ৪১ জন এবং লিনউডে সাতজন নিহত হন। হাসপাতালে মারা যান আরও একজন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেছেন, সাহসী ওই তরুণ লিনউড মসজিদের খাদেম। তিনি যদি হামলাকারীর বিরুদ্ধে রুখে না দাঁড়াতেন, তাহলে সেখানে নিহতের সংখ্যা আরও বেড়ে যেত।

ওই মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে যাওয়া সৈয়দ মাজহারিউদ্দিন বলেছেন, ঘটনার সময় অন্তত ৬০-৭০ জন মসজিদে ছিলেন। হঠাৎ গুলির শব্দ শুরু হয় এবং লোকজন আতঙ্কে দিজ্ঞ্বিদিক ছুটতে থাকেন। তিনি বলেন, সবাই ভয়ে চিৎকার করছিল। তখন লুকানোর জায়গা খুঁজছিলাম।

মাজহারিউদ্দিন জানান, সামরিক কায়দার ক্যামোফ্লাজড গিয়ার পরিহিত ওই হামলাকারী হাতে থাকা অস্ত্র দিয়ে নির্বিচারে গুলি করছিল। দরজার কাছেই বয়স্ক কয়েকজন ছিলেন। হামলাকারী তাদের দিকেও গুলি চালায়। ওই সময় মসজিদের তরুণ সেই খাদেম ভেতর থেকে এসে রুখে দাঁড়ান।

তিনি বলেন, সুযোগ বুঝে এগিয়ে গিয়ে হামলাকারীর ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে হাত থেকে বন্দুকটা কেড়ে নেন তরুণ। তারপর তিনি হামলাকারীকেও ধরার চেষ্টা করেন। তবে হামলাকারী দৌড়ে মসজিদ থেকে বেরিয়ে যায় এবং বাইরে অপেক্ষায় থাকা একটি গাড়িতে উঠে পালিয়ে যায় বলে জানান মাজহারিউদ্দিন।

তিনি জানান, হামলায় তার সামনেই একজনের বুকে, আরেকজনের মাথায় গুলি লাগে। একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। গুরুতর আহত আরেকজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় ভেতরে রেখে তিনি লোক ডাকতে বাইরে যান। তবে যখন তিনি দৌড়ে বাইরে আসেন, পুলিশ তখন মসজিদে ঢোকে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী আর তাকে ভেতরে যেতে দেয়নি। ফলে তিনি তার বন্ধুকে বাঁচাতে পারেননি।

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul