adimage

২৩ জানুয়ারী ২০১৮
সকাল ০৮:১১, মঙ্গলবার

এত শোক কেমনে সইবে দুলালের পরিবার

আপডেট  07:05 PM, জানুয়ারী ০৭ ২০১৮   Posted in : অর্থ ও বাণিজ্য লাইফ স্টাইল     

এতশোককেমনেসইবেদুলালেরপরিবার

ঢাকা, ৮ জানুয়ারি : সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দুলাল হোসেনের পরিবার শোকে পাথর হয়ে গেছে। এই পরিবারটি যেন চরম হতভাগ্য। গত তিন বছরে দুলালের আরও দুই ভাই সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। আহত হয়েছেন আরও এক ভাই।

শনিবার সকালে সৌদির পশ্চিমাঞ্চলীয় জিজানে সড়ক দুর্ঘটনায় ১০ বাংলাদেশি মারা যান; দুলাল তাদের একজন। তার বাড়ি সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার ঝাঐল ইউনিয়নের বালুকোল গ্রামে।

সরেজমিনে রোববার বিকেলে দুলালের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, ছেলের মৃত্যুর কথা শুনে বাড়ির ভেতরে অঝোরে কাঁদছেন দুলালের কৃষিজীবী বাবা আকবর আলী মণ্ডল। মূর্ছা যাচ্ছেন তার মমতাময়ী মা।

বারবার ভাগ্য বিপর্যয়ে পড়েছেন আকবর আলী। তার পাঁচ ছেলের মধ্যে দুলাল চতুর্থ। তার আরও দুই ছেলে ফুলাল হোসেন ও আবু হানিফ গত ৩ বছরের মধ্যে ঢাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। তারা ঢাকায় শ্রমিকের কাজ করতেন। ছোট ছেলে বাবু একটি দেশীয় ওষুধ কোম্পানির স্টোর কিপার ছিলেন। বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে তিনিও দেড় বছর ধরে বাড়িতে বসে আছেন। দুলালের আরেক বড় ভাই আবু বকর শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় বাড়িতে বৃদ্ধ বাবা-মায়ের সঙ্গে আছেন।

বিকেলে গণমাধ্যম কর্মীরা বাড়িতে গেলে নিহত দুলালের বাবা আকবর আলী বলেন, 'আমার ছেলেরা পরপর শুধু সড়ক দুর্ঘটনায়ই মারা যাচ্ছে। তিনজন মারা গেছে, দুজন ঘরে পড়ে আছে। আল্লাহই ভালো জানেন—আমরা এখন কীভাবে চলব!

স্বামীকে হারিয়ে তিনটি শিশু সন্তান নিয়ে এখন চোখে অন্ধকার দেখছেন দুলালের স্ত্রী স্বপ্না বেগম। স্বামীর মৃত্যুর খবর শুনে দুই দিন ধরে কাঁদতে কাঁদতে তার চোখের পানি শুকিয়ে গেছে। সন্তানদের কোলে নিয়ে নির্বাক তাকিয়ে আছেন তিনি। ৯ বছরের ছেলে সায়েম, ৫ বছরের ছেলে সাব্বির ও পাঁচ মাসের ছেলে বায়েজিদকে কোলে নিয়ে স্বপ্না বলেন, 'আমাদের এখন দেখবে কে?'

দুলালের মা হাজেরা বেগম বলেন, 'আমি বাবা তোমাদের কাছে আর কিছু চাই না। আমার ছেলের লাশ এনে দাও।'

কাঁদতে কাঁদতে তিনি আরও বলেন, 'দেড় বছর আগে সৌদি আরবে যায় দুলাল। প্রতি মাসে ২০ হাজার টাকা পাঠাত সে। ৫/৬ লাখ টাকা ধার নিয়ে সে বিদেশ যায়। ব্র্যাকসহ বেশ ক'টি প্রতিষ্ঠান থেকে ধার নিয়ে তাকে বিদেশ পাঠানো হয়েছে। এখন কীভাবে ধারের টাকা পরিশোধ করব?' -সমকাল

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul